রাষ্ট্রীয় বাহিনী দ্বারা সংঘটিত গুম ক্রসফায়ার বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ড প্রসঙ্গে যৌথ বিবৃতি

জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল। নয়াগণতান্ত্রিক গণমোর্চা
জাতীয় গণফ্রন্ট। জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ
অস্থায়ী কার্যালয়: ৩৩ তোপখানা রোড, মেহেরবা প্লাজা, ঢাকা ১০০০। ফোন: ০১৭১৩ ০৬৩৭৭৬

২৯/৪/২০১২
যৌথ বিবৃতি

বাংলাদেশে সম্প্রতি একাধিক গুম হওয়ার ঘটনা এবং গোপন খুনী বাহিনীর তৎপরতা বিষয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় একাধিক রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সভাপতি বদরুদ্দীন উমর, সম্পাদক ডাঃ ফয়জুল হাকিম, নয়াগণতান্ত্রিক গণমোর্চার যুগ্মআহ্বায়ক জাফর হোসেন, জাতীয় গণফ্রন্টের আহ্বায়ক টিপু বিশ্বাস ও জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চের আহ্বায়ক মাসুদ খান নিম্নলিখিত যৌথ বিবৃতি প্রদান করেছেন
“সাবেক সংসদ সদস্য ইলিয়াস আলীর গুম হওয়ার ঘটনা, শ্রমিক নেতা আমিনুল ইসলামের গুম ও পরবর্তীতে হত্যার ঘটনাসহ বিভিন্ন গুমের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মিডিয়ায়, বিশেষ করে গত ২৩ এপ্রিল শ্রীলংকা থেকে প্রকাশিত ‘শ্রীলংকা গার্ডিয়ানে’, বাংলাদেশে ‘ক্রুসেডার ১০০’ নামক গোপন খুনী বাহিনীর উপস্থিতি ও তৎপরতা বিষয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে সে সম্পর্কে আমরা সরকারের সুস্পষ্ট বক্তব্য ও ব্যাখ্যা দাবি করছি।
“বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিগত ৩ বছরে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনীর তৎপরতার রিপোর্ট বিভিন্ন ঘটনাবলীর মধ্য দিয়ে সামনে চলে এসেছে। বিশেষতঃ উত্তর-পূর্ব ভারতের আসাম-ত্রিপুরা-মেঘালয়-মিজোরাম-নাগাল্যান্ড-অরুণাচলের বিভিন্ন জাতিসত্তার স্বাধীনতাকামী বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে বাংলাদেশের অভ্যন্তর থেকে ভারতে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বলেছে বাংলাদেশ তাঁদের আটক করে ভারতের হাতে হস্তান্তর করেছে। অথচ বাংলাদেশের সাথে ভারতের কোন বন্দী প্রত্যর্পণ চুক্তি নেই। এছাড়া ভারতীয় মিডিয়া থেকে জানা যায় ভারতীয় গোয়েন্দারা এক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিভিন্ন বাহিনীর সাথে একাধিক যৌথ অভিযান পরিচালনা করেছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ সরকার এ ধরনের হস্তান্তরের ঘটনা বা যৌথ অভিযানের কথা অস্বীকার করে এসেছে। এসব ঘটনাবলী থেকে জনমনে ধারণা সৃষ্টি হয়েছে যে বাংলাদেশে বিভিন্ন বৈদেশিক বাহিনী গোপন তৎপরতা পরিচালনা করছে।
“এই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা অবিলম্বে ‘ক্রুসেডার ১০০’ নামক গোপন খুনী বাহিনী বিষয়ে সুস্পষ্ট বক্তব্য প্রদানের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাই। আমরা মনে করি, এ ধরনের বাহিনীর উপস্থিতি দেশের বর্তমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতিকে আরও বিপজ্জনক করে তুলবে। আর এসবের দায়-দায়িত্ব সরকারের ওপরই বর্তাবে।
“একই সাথে আমরা গুম ক্রসফায়ার বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ডের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার জন্য দেশের সকল প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক শক্তি ও সংগঠনসমূহের প্রতি আহ্বান জানাই।”

বার্তাপ্রেরক
ডাঃ ফয়জুল হাকিম
সম্পাদক
জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: