রূপগঞ্জে ‘আর্মি হাউজিং স্কিম’ বাতিল কর ভূমিদস্যুতা রুখে দাঁড়াও

বন্ধুগণ,
গত ২৩ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সেনাবাহিনীর ভূমিদস্যুতার বিরুদ্ধে স্থানীয় জনগণের দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত ক্ষোভ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। বিক্ষোভরত নিরস্ত্র জনতার উপর সেনা-র‌্যাব-পুলিশ বৃষ্টির মত গুলিবর্ষণ করে। এতে মোস্তফা জামাল নিহত হন, গুলিবিদ্ধ হন আরও ১৪ জন, আর নিখোঁজ রয়েছেন শমসের মোল্লা, সাইদুল ইসলাম, আব্দুল আলী সহ কয়েকজন। এরা সকলে স্থানীয় গ্রামের গরীব।
জানা যায়, রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ও রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ২৪টি মৌজার ৪০টি গ্রামে সেনাবাহিনীর অফিসারদের প্লট দেয়ার জন্য ‘আর্মি হাউজিং স্কিম’-এর নামে এ বছরের প্রথম দিকে কিছু জমি কেনা হয়। এরপর “৭ হাজার একর জমির মালিক সেনাবাহিনী, সর্বসাধারণের প্রবেশ নিষেধ” সাইনবোর্ড টানিয়ে দেয়া হয়। সেনাবাহিনী পূর্বগ্রাম, মুশুরি, ইছাপুর গ্রামে ও রূপগঞ্জ সদর সাবরেজিস্ট্রি অফিসের পাশে ক্যাম্প বসায়। সাদা পোষাকে সেনাসদস্যরা ভূমি রেজিস্ট্রি অফিসে ডিউটি দিতে থাকে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সেনাবাহিনীর নির্দেশে কায়েতপাড়া ও রূপগঞ্জ ইউনিয়নের ২৪টি মৌজার জমি রেজিস্ট্রি বন্ধ করে দেয়া হয়। শুধু ‘আর্মি হাউজিং’-এর নিকট জমি বিক্রি করলে ঐ জমি রেজিস্ট্রি করা হচ্ছিল, সেই জমির দাম দেয়া হচ্ছিল বাজার দরের চাইতে কম। কিন্তু স্থানীয় লোকজন কম দামে জমি বিক্রি করতে রাজি নয়; পৈত্রিক ভিটা ছেড়ে যেতেও চান না তারা।
জোরপূর্বক কমদামে জমি বিক্রির প্রতিবাদে বেশ কিছু দিন ধরেই স্থানীয় লোকজন প্রতিবাদ করে আসছিলেন। এই প্রতিবাদ ঠেকাতে সেনা ও র‌্যাব সদস্যরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দিয়ে আসে। ইতিপূর্বে রূপগঞ্জের ৫ হাজার বিঘা জমি রাজউক হুকুমদখল করে পূর্বাচল উপশহর নির্মাণ শুরু করে। এবার ‘আর্মি হাউজিং’-এর কাছে জমি বিক্রি করতে বাধ্য করায় জনগণ ফুঁসে উঠেন। উল্লেখ্য যে, এ বছরের জানুয়ারি মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘আর্মি হাউজিং স্কিম’ অনুমোদন করেন।
বন্ধুগণ,
রূপগঞ্জে ‘আর্মি হাউজিং’ এর নামে সেনাবাহিনী যে কায়দায় জমি কিনেছে এবং স্থানীয় জনগণ যে সব অভিযোগ তুলেছেন তাকে ভূমিদস্যুতা ছাড়া আর কী বলা যাবে? সাবেক সেনাপ্রধান, ‘বীরউত্তম’ খেতাবধারী মেজর জেনারেল (অবঃ) সফিউল্লাহ বলেছেন, “ডেভেলপার কোম্পানীগুলো হাউজিং ব্যবসা করতে পারলে সেনাবাহিনী কেন ন্যায্য দামে জমি কিনতে পারবে না?” বাংলাদেশে হাউজিং ব্যবসার নামে অধিকাংশ ডেভেলপার কোম্পানী ভূমিদস্যুতা করছে। আজকের বাংলাদেশে শাসকশ্রেণীর একটি বড় অংশই এই ভূমিদস্যুদের দ্বারা গঠিত। এরাই জাতীয় সংসদে, মন্ত্রীসভায়, সরকারে ও বিরোধী দলে বসে আছে। সফিউল্লাহ সেনাবাহিনীর পক্ষে এই ভূমিদস্যুতার অধিকারই চাইছেন।
বন্ধুগণ,
২৩ অক্টোবর রূপগঞ্জে সংঘটিত ঘটনা কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। ১৯৭২ সাল শুরু করে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামাত, জাতীয় পার্টি, সেনাশাসন বা তত্ত্বাবধায়ক প্রতিটি আমলেই বাংলাদেশে ঘুষ দুর্নীতি লুটপাট প্রভৃতির মাধ্যমে যে শাসক-শোষক শ্রেণী গঠিত হয়েছে রূপগঞ্জের ঘটনা তারাই ঘটিয়েছে। এই লুটেরা সন্ত্রাসী দুর্নীতিবাজ শাসক-শোষক শ্রেণী অর্থনীতি ক্ষেত্রে জারী রেখেছে দুর্নীতি ও লুণ্ঠন আর সমগ্র সমাজে জারী রেখেছে বেপরোয়া সন্ত্রাস। ঢাকার ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) অনুমোদিত হবার পর ঢাকা ও তার আশেপাশের জমি দখল করতে শাসক শ্রেণী মরিয়া হয়ে উঠেছে।
বাংলাদেশে সাঁওতাল, গারো, চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা প্রভৃতি ক্ষুদ্র জাতিসত্তাভুক্ত জনগণের জমি এভাবেই দীর্ঘদিন ধরে বেদখল হচ্ছে। বহু প্রজন্ম ধরে জীবিকা নির্বাহের উপায় জমি থেকে তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে। বিশেষ করে পার্বত্য চট্টগ্রামের জাতিসত্তার জনগণ অলিখিত সেনাশাসনের হাতে বিগত ৩ দশক ধরে নিজ ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ হচ্ছেন। ক্ষুদ্র জাতিসত্তার জমি প্রশ্নে এতদিন যে রাষ্ট্রীয় নীতি অনুসরণ করা হয়েছে, এখন তা ভিন্নভাবে সমতলের গরীবদের উপর প্রয়োগ শুরু হয়েছে। সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে রাতারাতি জমি দখল করে গরীবদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে।
বন্ধুগণ,
রূপগঞ্জের জনগণের প্রতিরোধ অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায়সঙ্গত প্রতিরোধ। জনগণ প্রবল প্রতিরোধ গড়ে তুলে সেনাবাহিনীর সদস্যদের ৬ ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন, গুলিবর্ষণ করেও তাদের হটানো যায় নি, সেনাসদস্যদের হেলিকপ্টারে তুলে সরিয়ে আনতে হয়েছে। জনগণের এই ন্যায়সঙ্গত প্রতিবাদ-প্রতিরোধ দমন করতে জুলুমবাজ সরকার হাজার হাজার গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে। আমরা রূপগঞ্জের জনগণের ন্যায়সঙ্গত সংগ্রামকে সমর্থন করি। আমাদের দাবি :
ক্স অবিলম্বে রূপগঞ্জে ‘আর্মি হাউজিং স্কিম’ বাতিল কর। ক্স সেনা-র‌্যাব-পুলিশ কর্তৃক জনতার উপর গুলিবর্ষণ, হত্যা ও নির্যাতনের বিচার কর। ক্স নিখোঁজ গ্রামবাসীদের খুঁজে দাও। ক্স গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার কর।
জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল
নয়াগণতান্ত্রিক গণমোর্চা
জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ
২৬/১০/২০১০

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: